জাপান অচিরেই বিদেশি শ্রমিক নিয়োগ দেবে

0

জাপানে শ্রমঘাটতি মেটাতে হাজারো বিদেশি শ্রমিককে নিয়োগের সুযোগ রেখে বিতর্কিত এক নতুন আইন অনুমোদন করেছে দেশটির পার্লামেন্ট। আগামী এপ্রিল থেকে দেশটির অবকাঠামো, কৃষি ও নার্সিংয়ের মতো পেশায় বিদেশি শ্রমিকেরা কাজ করতে পারবেন বলে বিবিসি অনলাইনের খবরে জানানো হয়।

 

জাপান সাধারণত অভিবাসন বিষয়ে কট্টর হলেও সরকার মনে করছে, দেশটিতে বৃদ্ধ মানুষের সংখ্যা বেড়ে যাওয়ায় কাজের জন্য অনেক বেশি বিদেশি শ্রমিক প্রয়োজন। তবে বিরোধী দলগুলো বলছে, নতুন আইনের কারণে নবাগতরা শোষণের শিকার হবে।

নতুন পদ্ধতির আওতায় তিন লাখের বেশি বিদেশি কাজ করার সুযোগ পাবেন। এই আইনে নতুন দুই ধরনের ভিসা রাখা হয়েছে। প্রথম ক্যাটাগরিতে শ্রমিকেরা পাঁচ বছরের জন্য কাজ করার সুযোগ পাবেন। তবে এর জন্য তাঁদের একটি নির্দিষ্ট ধাপ পর্যন্ত কাজের দক্ষতা ও জাপানি ভাষায় কিছুটা দক্ষতা প্রয়োজন হবে।

 

যারা উচ্চমাত্রায় দক্ষ বা পেশাদার, তাঁরা দ্বিতীয় ক্যাটাগরির ভিসার জন্য যোগ্য বিবেচিত হবেন। শেষে তাঁরা নাগরিকত্ব চেয়ে আবেদন করতে পারবেন।

 

বিরোধী দলগুলো দাবি করছে, প্রচুর বিদেশি শ্রমিক আসায় মজুরি কমে যাবে এবং তা অভিবাসী শ্রমিকদের শোষণকে ত্বরান্বিত করবে।

 

বিবিসির টোকিও প্রতিনিধি রুপার্ট উইংফিল্ড-হায়েস বলেছেন, অদক্ষ বিদেশি শ্রমিকদের ‘কারিগরি প্রশিক্ষণের’ চলমান কর্মসূচিটির অপব্যবহার করছে কিছু অসাধু নিয়োগকারী।

 

জাপানে ব্যবসার স্বার্থে অন্যান্য দেশ থেকে শ্রমিক নিয়োগ দিতে অভিবাসননীতিকে পরিবর্তন করতে অনেক দিন ধরে দাবি করে আসছেন ব্যবসায়ীরা। 

প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবে বলেন, প্রস্তাবিত আইনটি অভিবাসননীতিকে পুরোপুরি ঢেলে সাজানো হচ্ছে—এমনটা নয়। জাপান শুধু ‘যারা নির্দিষ্ট ক্ষেত্রে দক্ষ এবং যারা শ্রমঘাটতি মেটাতে এখনই কাজ করতে পারবে, তাদেরই আনবে।’

১৯৭০–এর দশকে জাপানে নারীপ্রতি জন্মহার ছিল ২ দশমিক ১ জনের নিচে। এখন তা আরও কমে ১ দশমিক ৪ শতাংশ। দেশটিতে মানুষের গড় আয়ু ৮৫ বছর ৫ মাস।

Comments

comments

Comments

comments

Comments

comments

Menu

Koreabashi